ঢাকার ব্যক্তিবর্গ

মানুষের হাত ধরে বিরাণভূমিতে জেগে ওঠে প্রাণের স্পন্দন। প্রয়োজনের তাগিদে সেখানে গড়ে ওঠে সমাজব্যবস্থা ; নিয়ন্ত্রণ করার জন্য তৈরি করা হয় নানা নিয়মকানুন। শাসন-শোষণের নানা ইতিহাস বুকে চেপে আস্তে আস্তে ক্ষুদ্র থেকে বৃহতের দিকে এগিয়ে যেতে থাকে এক খণ্ড ভূমি।

যুগে যুগে নানা মানুষের আত্মত্যাগে ক্ষুদ্র জনপদ পরিণত হয় নগরে। নগর গড়ে ওঠার পেছনের ইতিহাসটা বেশ দীর্ঘই হয়ে থাকে। ত্যাগ, শ্রম, হানাহানি-মারামারি, প্রাকৃতিক বিপর্যয়, ভোগ-দখল ধ্বংস-নির্মাণের কতরকমের কাহিনী যে লুকিয়ে থাকে সভ্যতার পেছনে তার কোন হিসেবে নেই।

নগর প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে থাকে অনেক মানুষের অবদান। তাদের অনেকেই থেকে যায় ইতিহাসের অন্তরালে। তাদের সকলকে খুঁজে বের করাও সম্ভব হয় না। এরমাঝেও কিছু কিছু মানুষ নিজেই হয়ে ওঠে ইতিহাসের অংশ। আবার অনেক গুরুত্বপূর্ণ মানুষ হারিয়েও যায় কালের গর্ভে।

১৬০৮ সালে মোগল রাজধানী হবার পূর্বেও ছিল ঢাকার অস্তিত্ব। সময়ের হাল ধরে কত শত-সহস্র মানুষ যে পা রেখেছে ঢাকায় আবার কত জন যে চলে গেছে এ শহর ছেড়ে তার কোন পরিসংখ্যান নেই। পৃথিবীর বহু দেশের নৌকা-জাহাজ এসে ভিড়েছে এ শহরের নদী বন্দরে।

ব্যবসা-বাণিজ্য, চাকরি, শিল্প-সাধনা, ভ্রমণ, ভাগ্যবদলসহ আরো নানা কারণে মানুষ এসেছে ঢাকাতে। এদের কেউ কেউ অল্পদিনেই ফিরে গেছে, কেউ দীর্ঘদিন অবস্থানের পরে, আবার কেউবা এখানেই স্থায়ীভাবে থেকে গেছে। শূন্য হাতে অনেকে এ শহরে এসে হয়ে উঠেছে ধনাঢ্য জমিদার বা শহরের নিয়ন্ত্রক। আবার অনেকে নিঃস্ব হয়েছেন ; তল্পিতল্পা গুটিয়ে চলে যেতে হয়েছে ঢাকা থেকে।

কবি, সাহিত্যিক, শিল্পী, বুদ্ধিজীবী, সংবাদিক, ব্যবসায়ী ছাড়াও বহু জ্ঞানীগুণীর সমাবেশ ঘটেছে এই শহরে। শুধুমাত্র ঢাকায় জন্মগ্রহণকারী বা পৈত্রিক সূত্রে ঢাকার অধিবাসী এরূপ ব্যক্তিকেই নয় বরং ১৯৪৭ সাল পর্যন্ত ঢাকায় অবস্থানকারী, বসবাসকারী ও আগত ব্যক্তিবর্গ যারা নিজেরা ঢাকাকে করেছে সমৃদ্ধ, বা ঢাকা যাদের দিয়েছে নতুন পরিচয়, ঢাকার ইতিহাসের সঙ্গে যারা জড়িয়ে আছেন ওৎপ্রোতভাবে, তাদের মধ্যে থেকে প্রাপ্ত ব্যক্তিবর্গের সংক্ষিপ্ত বিবরণ তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে এই অংশে।

একটা গোটা শহরের বসবাসকারী সকল মানুষকে তুলে আনা সম্ভব নয়। তবে ঢাকাকে সমৃদ্ধ করতে যাদের ব্যাপক ভূমিকা ছিল তাদের মধ্যে কয়েকজনকে তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে। এমন অনেক ব্যক্তিই আছেন যারা হয়ত ঢাকায় থেকেছেন জীবনের খুবই অল্প সময় তবুও তাদের সম্পর্কিত প্রাপ্ত তথ্য এখানে দেয়ার চেষ্টা করা হয়েছে।

কারণ এই তথ্যানুসন্ধানে হয়ত এমন কোন ইতিহাস বেড়িয়ে পরতে পারে যাতে করে নতুন করে চেনা যাবে ঢাকাকে। শুধু বিখ্যাত ব্যক্তিই নয় অনেক অখ্যাত ব্যক্তির পরিচয়ও তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে।

আবার দেখা গেছে অনেকে জন্মেছেন, বেড়েও ওঠেছেন এখানে কিন্তু পরবর্তী জীবনে চলে গেছেন এ শহর থেকে। এখানে তাদের মধ্যে অনেকের কথাও এসেছে। এক্ষেত্রে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে তাদের ঢাকার জীবনকেই। আবার দেখা গেয়ে অনেকে পরিণত বয়েসে ফিরে এসেছেন ঢাকাতে ; এক্ষেত্রেও একই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

আবার জ্ঞানীগুণী ব্যক্তির পাশাপাশি অনেক সাধারণ লোকের কথাও এসেছে। সমকালীন সমাজচিত্র তুলে আনার জন্য সাধারণ মানুষের আলোচনা জরুরি। কিন্তু দুঃখের বিষয় সাধারণ মানুষের কথা ইতিহাসের পাতায় খুঁজে পাওয়া দুষ্কর।

ইতিহাসের সর্বত্রই শাসক শ্রেণী ও তাদের আশেপাশের লোকজনের কথাই পাওয়া যায়। তারপরেও চেষ্টা করা হয়েছে সাধারণ কয়েকজন মানুষকে সমাজের আর অন্য সবার সঙ্গে তুলে ধারার।

মূর্শেদূল মেরাজ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

five + 9 =

এই শহর নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে যে তথ্য-উপাত্ত্য সংগ্রহ করেছি গত এক দশকের বেশি সময় ধরে তা নিয়ে কিছু একটা করবার ইচ্ছে ছিল বহুদিন ধরেই। নানা…

error: Content is protected !!